1. info@www.newsibangla.com : news :
ভূরুঙ্গামারীতে চেতনা নাশক মিশিয়ে পরিবারের সকলকে অচেতন করে সর্বস্ব লুট - News i Bangla
বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১১:১০ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
ফুলবাড়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আতাউর রহমান মিল্টন বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত ডোমার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত সরকার ফারহানা আখতার সুমি চট্টগ্রামে র‌্যাবের পাতা ফাঁদে আঁটকে গেল ৪ চাঁদাবাজ নাজাত যেন মেলে নালিতাবাড়ীতে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে প্রার্থীদের গণসংযোগ এক বছরের মাথায় চিলাহাটি এক্সপ্রেস কোচ লক্কড়ঝক্কড় বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক/কর্মচারী যোগদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত গাজীপুরের শ্রীপুরে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত চিলাহাটিতে ভোক্তা অধিকারের অভিযান, ৩ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা শেকড়ের সন্ধানে শীর্ষক সুরেন্দ্রনাথ কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে সপ্তম মিলনমেলা

ভূরুঙ্গামারীতে চেতনা নাশক মিশিয়ে পরিবারের সকলকে অচেতন করে সর্বস্ব লুট

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ২২ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৭৬ বার পড়া হয়েছে

মনিরুল ইসলাম,ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে খাবারের সাথে চেতনা নাশক মিশিয়ে দুটি ব‍্যবসায়ী পরিবারের সদস্যদের অচেতন করে এক পরিবারের সর্বস্ব লুট করেছে দূর্বৃত্তরা। অপর পরিবারের সকল সদস্য অচেতন অবস্থায় অসুস্থ হয়ে পড়েছে।

এঘটনায় এলাকাবাসী ও সোনাহাট স্থলবন্দরের ব‍্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার সোনাহাট স্থলবন্দরের আমদানি রপ্তানি কারক বিশিষ্ট ব‍্যবসায়ী শফিকুল ইসলাম এবং গত বুধবার বিকেলে সোনাহাট বাজারের ব‍্যবসায়ী মজিবর রহমান মন্টুর বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

তারা উভয়েই সোনাহাট ইউনিয়নের বানুরকুটি গ্রামের বাসিন্দা।

এ বিষয়ে ব‍্যবসায়ী শফিকুল ইসলাম জানান, সোমবার রাতে শ্বশুর বাড়ির মেহমানসহ রাতের খাবার খেয়ে বাসার সকলে ঘুমিয়ে পড়ি। পরদিন (মঙ্গলবার) সকাল আটটার দিকে ঘুম ভাঙ্গে। ওঠে দেখি বাসার মেইন গেট ও ঘরের দরজা ভাঙা। মধ‍্যরাতে কে বা কাহারা গেট ও ঘরের দরজা মেশিন দিয়ে কেটে ঘরে প্রবেশ করে নগদ সাড়ে তিন লক্ষ টাকা ও আমার স্ত্রীর স্বর্ণের যাবতীয় গহনাসহ মূল‍্যবান জিনিস লুট করে নিয়ে যায়।চেতনানাশকের ক্রিয়ায় মেহমানসহ আমরা বাড়ির সকলে ঘুমে এতোই অচেতন ছিলাম যে দরজা ও গ্রিল কাটার কোন শব্দ শুনতে পাইনি। এর প্রতিকার চেয়ে ভূরুঙ্গামারী থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছি।

অপরদিকে মন্টুর পরিবার জানায়, বুধবার তাদের ব‍্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানের হালখাতা ছিলো। হালখাতায় আগত মেহমানদের জন‍্য খিচুড়ি খাওয়ার ব‍্যবস্থা করা হয়। পরে বিকেলে বাড়ির সকলে খিচুড়ি খেয়ে মন্টু নিজে তার স্ত্রী, সন্তান, বোন, ভাগনিসহ পরিবারের ৮ জন সদস‍্য অচেতন অবস্থায় অসুস্থ হয়ে পড়ে। এতে মন্টু অবস্থার অবনতি হলে তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে আনোয়ারা জাহাঙ্গীর ক্লিনিকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ আবু সাজ্জাদ মোহাম্মদ সায়েম জানান, ঘুমন্ত অবস্থায় রোগীকে হাসপাতালে আনা হয়। ধারণা করা হচ্ছে ঘুমের ঔষধ জাতীয় কিছু খাবারের সাথে মিশিয়ে খাওয়ানো হয়েছিল। আজ (বৃহস্পতিবার ) আমি রোগীর সাথে কথা বলেছি। এখন তিনি শঙ্কা মুক্ত আছেন।

ভূরুঙ্গামারী থানার অফিসার ইনচার্জ রুহুল আমিন জানান, এ বিষয়ে শফিকুল ইসলামের একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি এবং মন্টুর পরিবারকে থানায় আসতে বলেছি। আমাদের তদন্ত টিম মাঠে কাজ করছে। তদন্ত রিপোর্ট পেলে পরবর্তী ব‍্যবস্থা নেওয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: বাংলাদেশ হোস্টিং