1. sumondomar2021@gmail.com : sumon islam : sumon islam
  2. info@www.newsibangla.com : news :
রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ০৫:৪০ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
ডোমার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত সরকার ফারহানা আখতার সুমি চট্টগ্রামে র‌্যাবের পাতা ফাঁদে আঁটকে গেল ৪ চাঁদাবাজ নাজাত যেন মেলে নালিতাবাড়ীতে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে প্রার্থীদের গণসংযোগ এক বছরের মাথায় চিলাহাটি এক্সপ্রেস কোচ লক্কড়ঝক্কড় বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক/কর্মচারী যোগদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত গাজীপুরের শ্রীপুরে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত চিলাহাটিতে ভোক্তা অধিকারের অভিযান, ৩ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা শেকড়ের সন্ধানে শীর্ষক সুরেন্দ্রনাথ কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে সপ্তম মিলনমেলা ফুলবাড়ীতে জাতীয় ভোটার দিবস পালিত

ভোলায় আলোচিত হওয়া সম্পত্তি নিয়ে ৪ সন্তানের দ্বন্দ্ব, সম্পত্তি স্টাম্পে লিখিত নিয়ে বাবার লাশ দাফন

এইচ এম হাছনাইন
  • প্রকাশিত: শনিবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ৬১ বার পড়া হয়েছে

এইচ এম হাছনাইন, ভোলা প্রতিনিধি: ভোলার চরফ্যাশনে ৪ সন্তানকে সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করায় বাবার লাশ দাফন করতে দেয়নি ৪ সন্তান। অবশেষে ১২ ঘন্টা পর স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে স্টাম্পে লিখিত হওয়ার পর বাবার লাশ দাফন করলেন সন্তানরা।

শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) রাত ৮টার দিকে মৃত রতন তরফদারকে দাফন করা হয়। এর আগে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে নিজ বাড়িতে বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান তিনি।

রতন তরফদার চরফ্যাশন উপজেলার চর মাদ্রাজ ইউনিয়নের চর আফজাল গ্রামের বাসিন্দা। তার দাফনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চর মাদ্রাজ ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান হারুন কিবরিয়া।

মৃত রতন তরফদার ৬টি বিয়ে করেছেন। ছয় ঘরে তার মোট সন্তান ১৫ জন। এই ১৫ জনের মধ্যে ৪ জন তার লাশ দাফনে বাধা দিয়েছিলেন। চারজনের মধ্যে একজন মেয়ে আর তিনজন ছেলে।

চর মাদ্রাজ ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান হারুন কিবরিয়া জানান, রতন তরফদারকে রাত ৮টার দিকে দাফন করা হয়েছে। মৃত্যুর ১২ ঘন্টা পর তাকে দাফন করা হয়েছে। যে ৪ সন্তান তার বাবাকে দাফন করতে বাধা দিয়েছিল। সেই ৪ সন্তান স্টাম্পে আমার কাছে লিখিত দিয়েছে। দু-এক দিনের মধ্যে আমরা এ বিষয়টি নিয়ে সমাধানে বসবো।

তিনি আরও জানান, মৃত রতন তরফদার জীবিত থাকা অবস্থায় ৬টি বিয়ে করেন। ছয় ঘরে তার ১৫ জন সন্তান রয়েছে। তিনি জীবিত থাকা অবস্থায় ১৫ সন্তানের মধ্যে ১১ সন্তানকে তাঁর সকল সম্পত্তি লিখে দিয়েছিলেন। বাকি ৪ সন্তানকে কোনো সম্পত্তি দেননি। যাঁর কারনে আজ সকাল সাড়ে ৮ টায় তিনি মারা যাওয়ার পর তার লাশ দাফনে ৪ সন্তান আপত্তি জানায়। তারা লাশ দাফন করতে দেননি। বাদ জুম্মা নামাজের পর তার লাশ দাফন করার কথা থাকলেও তাঁরা দাফন করতে দেননি। এরপর আমি এবং ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হাই রতন তরফদারের বাড়িতে গিয়ে ৪ সন্তানের কাছ থেকে স্টাম্পে লিখিত নিয়ে লাশ দাফন করেছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: বাংলাদেশ হোস্টিং