1. sumondomar2021@gmail.com : sumon islam : sumon islam
  2. info@www.newsibangla.com : news :
রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০৪:৩৯ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
শেকড়ের সন্ধানে শীর্ষক সুরেন্দ্রনাথ কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে সপ্তম মিলনমেলা ফুলবাড়ীতে জাতীয় ভোটার দিবস পালিত কচুয়ায় খামারে অগ্নিসংযোগ এবং পুকুরে বিষ প্রয়োগ আগুনে পুড়ে মারা গেল মির্জাপুরের মেহেদী বাংলাদেশ কম্পিউটার সোসাইটি’র নবনির্বাচিত কমিটির কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর। নাঃগঞ্জে মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বইমেলায় কবিদের উত্তরীয় দিয়ে বরণ। চিলাহাটিতে খাসি মোটাতাজকরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল পদকে ভূষিত হলেন বরগুনার পুলিশ সুপার মোঃ আবদুস ছালাম নড়াইলের শান্তা সেনের মেডেকেল শিক্ষা জীবন সম্পন্ন করতে দারিদ্র বাবা-মায়ের দুঃশিন্তা রংপুরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার দায়ে স্বামীর আমৃত্যু কারাদণ্ড

ধামরাইয়ের মোড়ে মোড়ে শীতের পিঠা বিক্রির ধুম

সম্রাট আলাউদ্দিন
  • প্রকাশিত: রবিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ২২ বার পড়া হয়েছে

সম্রাট আলাউদ্দিন,ধামরাই(ঢাকা)প্রতিনিধিঃ-শীত এলেই ধামরাই উপজেলার বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে মোড়ে পিঠা বিক্রির ধুম পড়ে যায়। পিঠা তৈরি ও বিক্রির কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েন রহিমা, রাসেল, আয়শাসহ আরও অনেকে। এরা বছরের অন্য সময় দিনমজুরের কাজ করেন আবার এদের মধ্যে কেউ কেউ এক সময় ছিলেন অবহেলিত কর্মহীন বেকার। শীত আসায় তাদের হাতে কাজ এসেছে। তারা এখন পিঠা তৈরির কারিগর।ধামরাই পৌরসভার বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে এবং উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজার ও বড় বড় রাস্তার মোড়ে এমন পিঠা তৈরির দোকান চোখে পড়ার মতো। ভাপা, চিতই, সাতপুতি, তেলের পিঠা, চাপড়িসহ নানান স্বাদের পিঠা এখন হাতের কাছে মিলছে। বিকেল হলেই দোকানিরা তাদের পসরা সাজিয়ে বসছে। ধামরাই উপজেলা পরিষদ চত্বর, কিষাণ প্লাজার সামনে, ইসলামপুর গোডাউন মোড়, ধামরাই যাত্রাবাড়ী মোড়, ঢুলিভিটা বাসট্যান্ড, থানা রোড বাসস্ট্যান্ড, ধামরাই মডেল টাউন, কালামপুর হাট, বাথুলি স্ট্যান্ড, জয়পুরা বাজার, তালতলা, চন্দ্রাইল বৌ বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে এখন রকমারি পিঠার দোকান পিঠাপ্রেমিদের আকৃষ্ট করছে।দিনক্ষণের গণনায় শীতকাল না এলেও সারা দেশে শীতের আমেজ শুরু হয়েছে আগেই। বংশী নদীর অববাহিকায় ধামরাই অঞ্চল তাই এ অঞ্চলে শীত নেমেছে।সরেজমিনেম শনিবার বিকেলে ধামরাই পৌরসভার বাজার ও উপজেলা চত্ত্বর এলাকায় দেখা যায় ভাপাসহ হরেক পিঠার পসরা সাজিয়ে বসেছেন দোকানিরা। নানা পদের ভর্তায় ধোঁয়া ওঠা চিতই পিঠার স্বাদ নিতে ব্যস্ত পথচারী ও আশপাশের মানুষ। আর পিঠা বিক্রি করে আয়ের পথ সুগম হচ্ছে কিছু মানুষের।
ধামরাই কিষাণ প্লাজার সামনে ফুটপাতে চিতই, ভাপা ও চাপড়ি পিঠা বিক্রি করেন রহিমা বেগম। পৌরসভার কায়েৎ পাড়া এলাকার বাসিন্দা রহিমা বেগম জানান, প্রতিদিন বিকেলে চিতই, ভাপা, চাপড়ি পিঠার সরঞ্জাম নিয়ে বসেন। সঙ্গে থাকে শুঁটকিভর্তা, কালোজিরা, ধনিয়া পাতা, সরিষাবাটা ভর্তা। কয়েক পদের ভর্তার সঙ্গে তার পিঠা ভালোই চলে। ডিম দিয়ে চিতই পিঠাও বিক্রি করেন তিনি।রহিমা বেগম জানান, ধামরাই উপজেলা অফিস, কিষাণ মার্কেটের লোকজন ও ভূমি অফিসের মানুষ বিকেলে নাশতার জন্য এখানে এসে অনেকেই ভর্তা দিয়ে পিঠা খান। তাই ফুটপাত হলেও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার দিকে তিনি নজর রাখেন। পিঠা বানিয়ে পরিস্কার পাত্রের মধ্যে রাখেন, ভর্তাও রাখেন ঢাকনাওয়ালা বাটিতে।প্রতিটি চিতই, ভাপা ও চাপড়ি পিঠা ১০ টাকা এবং ডিম চিতই একেকটি ৩০ টাকা রাখেন তিনি। তার কাজে সহায়তা করে তার বোন আয়েশা।কেমন বিক্রি হয়, জানতে চাইলে এই দোকানি বলেন, প্রতিদিন সাড়ে তিন থেকে চার হাজার টাকা বিক্রি হয়। তাতে সব খরচ বাদ দিয়ে হাজারখানেক টাকা থাকে।ঢুলিভিটা স্ট্যান্ডে সারা বছরই চিতই পিঠা বিক্রি করেন রাসেল। তিনি জানান, শুধু শীতকালই নয়, সারা বছরই প্রতিদিন দুপুরের পর পিঠা বিক্রি করেন তিনি। ঢুলিভিটা স্ট্যান্ডের আশেপাশের মানুষজন তার পিঠা কেনেন। অনেকে ৮ থেকে ১০টা করে বাসায় নিয়ে যান, পরিবারের সবাই একসঙ্গে বসে খান।প্রতিটি চিতই পিঠা ১০ টাকা করে বিক্রি করেন রাসেল। তিনি জানান, পিঠা তৈরির জন্য চালের গুঁড়াসহ আনুষঙ্গিক সব জিনিস জোগাড়ে তার স্ত্রী সহায়তা করেন। পিঠা বিক্রি করেই তাদের সংসার চলে।ফুটপাতের পিঠা বিক্রেতারা জানান, বেশিরভাগই মৌসুমি ব্যবসা হিসেবেই পিঠা বিক্রি করে থাকেন। শীতের তিন-চার মাস চলে পিঠার ব্যবসা। তারপর কেউ কেউ অন্য কাজে জড়িয়ে পড়েন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: বাংলাদেশ হোস্টিং