1. sumondomar2021@gmail.com : sumon islam : sumon islam
  2. info@www.newsibangla.com : news :
কচুয়ায় গাভী ও ছাগল পালন করে ২ হাজার পরিবার স্বাবলম্বী - News i Bangla
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৪:৩১ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
ফুলবাড়ী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আতাউর রহমান মিল্টন বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান নির্বাচিত ডোমার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত সরকার ফারহানা আখতার সুমি চট্টগ্রামে র‌্যাবের পাতা ফাঁদে আঁটকে গেল ৪ চাঁদাবাজ নাজাত যেন মেলে নালিতাবাড়ীতে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে প্রার্থীদের গণসংযোগ এক বছরের মাথায় চিলাহাটি এক্সপ্রেস কোচ লক্কড়ঝক্কড় বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক/কর্মচারী যোগদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত গাজীপুরের শ্রীপুরে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত চিলাহাটিতে ভোক্তা অধিকারের অভিযান, ৩ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা শেকড়ের সন্ধানে শীর্ষক সুরেন্দ্রনাথ কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে সপ্তম মিলনমেলা

কচুয়ায় গাভী ও ছাগল পালন করে ২ হাজার পরিবার স্বাবলম্বী

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শনিবার, ২০ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ৪১ বার পড়া হয়েছে

আনোয়ার হোসেন (রাজ), কচুয়া চাঁদপুর প্রতিনিধি : কচুয়া উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসবাস করা নারীরা এখন আয় বর্ধন মূলক কাজ করে সংসারে বাড়তি আয়ের পাশাপাশি নিজেরা আর্থিকভাবে সাবলম্বী হচ্ছেন। উপজেলার পালাখাল মডেল ইউনিয়নের সফিবাদ গ্রামের নারগিস বেগম গাভী পালন এখন স্বাবলম্বী। ল্যাসিম কর্মসূচির আওতায় পোভার্টি ইরাডিকেশন প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে এ উপজেলার তিনটি ইউনিয়নের ১২টি গ্রামের প্রায় ২ হাজার পরিবারকে সাবলম্বী করা হয়েছে। গ্রামীণ পর্যায়ে নারী কিংবা সুবিধা বঞ্চিতদের সাবলম্বী করে তোলার জন্য কাজ করছেন কেআইডিপি। বিদেশী দাতা সংস্থার সহায়তা এলাকার হতদরিদ্র নারী ও পুরষদের সাবলম্বী করা হচ্ছে। ২০২২-২০২৩ অর্থ বছরে ক্ষুদ্র ব্যবসা, ছাগল পালন, কৃষি কাজ, সবজি চাষ সহ নানান ভাবে সহায়তা করে আসছে এ সংস্থাটি।

উপকারভোগী নারগিছ বেগম ও আয়েশাসহ একাধিক লোকজন জানান, কেআইডিপি’র মাধ্যমে তারা নান সুবিধা পেয়েছেন। বিশেষ করে খাদ্য,চিকিৎসা ও শিক্ষা সহায়তা,স্যানিটেশন ও চারা বিতরন করে আসছে তারা। গ্রামীন প্রান্তিক পর্যায়ে নারী সদস্যদের স্বাবলম্বী করতে যে উদ্যোগ নিয়েছেন এমন কাজে ও সহযোগিতা পেয়ে খুশি উপকারভোগীরা।

কেআইডিপি’র ইউনিয়ন মাঠ সমন্বয়কারী আব্দুল মতিন, ভারপ্রাপ্ত মাঠ সমন্বয়কারী ছৈয়দ হোসেন ও সুমন বলেন, শুধু গাভী কিংবা ছাগল নয় সককিছু হতদরিদ্রদের পাশে কাজ করে যাচ্ছি। সামাজিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে নিজের ক্ষমতায়নেও বিশেষ ভূমিকা পালন করছে নারীরা। পর্যায়ক্রমে উপজেলার প্রতিটি গ্রামে সুবিধাবঞ্চিত নারীদের সহায়তা করা হবে।

পোভার্টি ইরাডিকেশন প্রোগ্রামের জেলা মাঠ সমন্বয়কারী কর্মকর্তা মো. আলাউদ্দিন বলেন, এ পর্যন্ত তিনটি ইউনিয়নের ১২টি গ্রামে ২ হাজার অসহায় মানুষকে সাবলম্বী করা হয়েছে। গ্রামীণ পর্যায়ে বসবাস করা জনগোষ্ঠী যারা অসহায় এবং দুস্থ তাদের মুখে হাসি ফুটানোর জন্য পিইপি’র সহায়তায় ওই বিশেষ কর্মসূচি চালু করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: বাংলাদেশ হোস্টিং